মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৮, ২০১৭

দুবাইতে হেলথ ইন্সুরেন্স আইন ভঙ্গকারী প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

স্বাস্থ্যবীমা না থাকলে জরিমানা গুনতে হবে ভিসা ফি’র সাথে-

দুবাই: দুবাই হেলথ অথরিটি (ডিএইচএ) মঙ্গলবার জানায় তারা ২৫টি হেলথ সেন্টার, ক্লিনিক, ইন্সুরেন্স দালাল এবং ইন্সুরেন্স কোম্পানীকে দুবাইয়ের আবশ্যিক হেলথ ইন্সুরেন্স আইন ভঙ্গ করার জন্য জরিমানা করেছে। এ সময় মারাত্মক প্রতারণায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৬টি ক্লিনিককে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। অথরিটির হেলথ ফান্ডিং ডিপার্টমেন্ট এবং অভিযোগকারীদের সমন্বয়ে নিয়মতান্ত্রিক অভিযানের সময় এসব আইন লঙ্ঘনের ঘটনা ধরা পড়ে। দুবাই হেলথ অথরিটির হেলথ ফান্ডিং ডিপার্টমেন্টের ডিরেক্টর ড. হায়দার আল ইউসুফ বলেন, আইন ভঙ্গকারী এসব হেলথ সেন্টার, ক্লিনিক, ইন্সুরেন্স দালাল এবং ইন্সুরেন্স কোম্পানীসহ এসব প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার থেকে ৮০ হাজার দিরহাম জরিমানা করা হয়েছে। “কিছু স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ও ইন্সুরার কোম্পানী হেলথ ইন্সুরেন্স আইন এবং হেলথ ফান্ডিং ডিপার্টমেন্ট কর্তৃক ইস্যুকৃত বিজ্ঞপ্তি সঠিকভাবে অনুসরণ করেনি। নিয়মতান্ত্রিক অভিযান পরিচালনা, বাস্তবায়ন মিটিং এবং এতে সংশ্লিষ্ট থাকা বিভিন্ন পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা এগুলো পর্যবেক্ষণ করেছি। সুতরাং ভবিষ্যতে এ ধরনের অপরাধ যাতে না ঘটে সেজন্য আমরা জরিমানার ব্যবস্থা নিয়েছি”- তিনি বলেন।

ডাক্তার আল ইউসুফ অপরাধের বিবরণের একটা তালিকা তুলে ধরেন:

১-দাবীকৃত অর্থ আদায়ে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা রোগনির্ণয়ের ফলাফলে পরিবর্তন করেছে।

২-স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা পরীক্ষা করেনি এমন রোগেরও বিবরণ দাখিল করেছে।

৩-কাভারেজ নেয়া এবং দাবীকৃত অর্থ আদায়ে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা আংশিক পরীক্ষার ফলাফল পেশ করেছে।

৪-সুবিধাভোগীরা হেলথ ইন্সুরেন্স কার্ডের অপব্যবহার করেছে।

৫-অপ্রয়োজনীয় সব সেবা এবং ল্যাবরেটরিতে যাওয়ার আদেশ করেছে।

৬-স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা রিপোর্ট প্রদান করেছে সংশ্লিষ্ট সদস্যের পরীক্ষা সম্পন্ন করার আগেই এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে রোগীরা আর সার্ভিসটি পূর্ণ করে নিতে ফিরে আসেনি। যেমন- ডেন্টাল এবং ফিজিওথেরাপি সেশনে এমনটা হয়েছে।

৭-হেলথ ইন্সুরেন্স কার্ড ইস্যু করতে কিংবা আমিরাতী আইডি কার্ড এ্যাক্টিভেট করতে ইন্সুরেন্স কোম্পানীর দেরী করা।

৮-ডিএইচএ’র চাহিদা অনুযায়ী ইন্সুরেন্স কোম্পানীগুলোর যথাযথ মাত্রার গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জন না করা, বিশেষত ফ্রন্ট ডেস্ক এবং কর্মচারী নিয়ন্ত্রিত কল সেন্টারগুলোতে।

৯-ডিএইচএ’র ভেরিফিকেশন ছাড়াই ইন্সুরার মার্কেট বা বিজ্ঞাপনে ভুল তথ্য সরবরাহ করা।

১০-ইন্স্যুরাররা ডিএইচএ/এইচএফডি’র লাইসেন্স ছাড়াই দুবাই মার্কেটে হেলথ ইন্সুরেন্স প্রাকটিস করছে।

১১- ইন্স্যুরাররা দুবাই মার্কেটে ডিএইচএ/এইচএফডি’র লাইসেন্স বিহীন কোম্পানীর সাথে হেলথ ইন্সুরেন্স কার্যক্রম চালাচ্ছে।

স্বাস্থ্যবীমা না থাকলে জরিমানা গুনতে হবে ভিসা ফি’র সাথে-

দুবাইতে যে সব রেসিডেন্টের বাধ্যতামূলক স্বাস্থ্যবীমা নেই, তাদের জরিমানা ভিসা নবায়নের সময় যুক্ত করা হবে। আর জেনারেল ডিরেক্টর অব রেসিডেন্সি অ্যান্ড ফরেনারস অ্যাফেয়ার্স’র ক্যানসেলেশান ফি ১ এপ্রিল থেকে আদায় করা শুরু হয়েছে। দুবাই স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের পরিচালক ডঃ হায়দার আল ইউসুফ বলেন, ‘এই জরিমানা ধরা হবে স্পন্সর ও নিয়োগকর্তার উপরে, শ্রমিকের উপর নয়। যে রেসিডেন্ট স্বাস্থ্য বীমা করতে ব্যর্থ হবে, তাদের মাস প্রতি জরিমানা হল ৫ শ দিরহাম। এই জরিমানা ছাড়াও স্বাস্থ্য বীমা ছাড়া নতুন কোন ভিসা ইস্যু করা হবেনা। পুরাতন ভিসা নবায়নও করা হবে না।

শেয়ার করুন

0 comments: