বৃহস্পতিবার, মে ২৫, ২০১৭

বাংলাদেশের প্রথম ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অন্বেষা’র

বাংলাদেশের প্রথম ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অন্বেষা’র গ্রাউন্ড স্টেশন উদ্বোধন করা হয়েছে। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর ভবনের ছাদে স্থাপন করা গ্রাউন্ড স্টেশনটি আজ ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হোসেন আবেদ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন।

উল্লেখ্য, “ব্র্যাক অন্বেষা” উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বাংলাদেশের মহাকাশযাত্রা শুরু হবে। কক্ষপথে স্থাপনের পর এখান থেকেই স্যাটেলাইটটির সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা হবে।

গ্রাউন্ড স্টেশনের ছয় জনের দলের সদস্য বিজয় তালুকদার দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, “পূর্ণভাবে কাজ চালানোর জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি।” এই প্রকল্পের উপদেষ্টা ও বিশ্ববিদ্যালয়টির সহযোগী অধ্যাপক খলিলুর রহমান জানান, গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে স্যাটেলাইটের কাজ নিয়ন্ত্রিত হবে। এখান থেকেই স্যাটেলাইটের তথ্য ডাউনলোড করা হবে।

গ্রাউন্ড স্টেশন উদ্বোধনের সময় স্যার ফজলে হাসান আবেদ গবেষণায় সরকারি সহযোগিতা বৃদ্ধির আহ্বান জানিয়ে বলেন, “আমাদের দেশে প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। আমাদের এগুলো কাজে লাগাতে হবে।”

“সরকার যদি জিডিপি’র এক শতাংশও গবেষণার কাজে ব্যবহার করে দেশে প্রচুর মেধাবীর জন্ম হবে। এই মেধাবীদের বিদেশে চলে যাওয়া থামাতে হবে।”

ওজনে এক কেজি ও আকারে ১০ সেন্টিমিটারের “ব্র্যাক অন্বেষা”-কে পৃথিবী থেকে ৪০০ কিলোমিটার উঁচুতে কক্ষপথে স্থাপন করা হবে। প্রতি ৯০ মিনিটে এটি পৃথিবী প্রদক্ষিণ করবে। দিনে চার থেকে ছয়বার বাংলাদেশের ওপরে আসবে স্যাটেলাইটটি।

স্যাটেলাইটটি মূলত গবেষণার কাজে ব্যবহৃত হবে। এটি দুর্যোগের পূর্বাভাস ও উচ্চমানের ছবি পাঠাতে সক্ষম।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনজন শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ হিল কাফি, রায়হানা শামস ইসলাম অন্তরা এবং মাইসুন ইবনে মনোয়ার জাপানের কিউশু ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজিতে ন্যানো স্যাটেলাইটটি তৈরি করেছেন।

শেয়ার করুন

0 comments: