বৃহস্পতিবার, মে ২৫, ২০১৭

নিষিদ্ধ আলজাজিরা - কাতার নিউজ সহ অনেক পত্রিকা

সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে কাতারের যেসব চ্যানেল এবং পত্রিকার ওয়েবসাইট ও টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হয়েছে সেগুলো হলো- কাতার নিউজ এজেন্সি, আল-জাজিরা ডকুমেন্টারি চ্যানেল, আল-জাজিরা ইংলিশ নিউজ চ্যানেল, আরবি ভাষার পত্রিকা আল-ওয়াতান, আধা সরকারি পত্রিকা আল-রাইয়া, আল-আরব এবং সরকারপন্থি আশ-শার্ক পত্রিকা। এছাড়া, গতকাল কিছু সময়ের জন্য আরব আমিরাতে আল-জাজিরা টিভি চ্যানেলও দেখা যায়নি।

সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মিশরে কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত আন্তর্জাতিক এই সংবাদমাধ্যটি নিষিদ্ধ করেছে ‘ভুয়া’ খবর ছাপার কারণে। তবে মিশরে আল জাজিরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে ব্রাদারহুডকে সমর্থন ও সহায়তা দেওয়ার কারণে। দেশটি আল জাজিরাসহ আরও ২১টি সংবাদ সাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে। এই বিষয়ে মিশরে সরকারিভাবে কোনো বিবৃতি দেওয়া হয় নি। খবরের সত্যতার জন্য মিশরের ন্যাশানাল টেলিকম রেগুলেটরি কর্তৃপক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোনো নিশ্চিত তথ্য পাওয়া যায়নি বলেছে রয়টার্স। রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসবাদ ও চরমপন্থাকে সমর্থন করায় আল-জাজিরা টেলিভিশন চ্যানেলের প্রধান ওয়েবসাইটসহ ২১টি ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে মিশর। 

এদিকে মিশরের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা মিনার প্রতিবেদনে বলা হয়, এসব ওয়েবসাইটের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে। মিশরের দুই নিরাপত্তা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, মুসলিম ব্রাদারহুডের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকায় কাতারের অর্থায়নে পরিচালিত এসব ওয়েবসাইটগুলোকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে বিশ্ব সংবাদমাধ্যমের খবর অনুসারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে টানাপড়েনের কারণে সৌদি আরব, কুয়েত, বাহরাইন, মিশর এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে কাতার। এ প্রতিবেদন প্রকাশের পর এবং গত মঙ্গলবার কাতারি আমিরের এক বিতর্কিত মন্তব্যের কারনে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত কাতারি গণমাধ্যম বন্ধের এ পদক্ষেপ নিয়েছে।


আঞ্চলিক স্পর্শকাতর ইস্যুতে কাতারের আমির তামিম বিন হামাদ আলে সানির কিছু বক্তব্যের পর সৌদি আরব ও আমিরাত এ ব্যবস্থা নিল। কাতারি আমিরের বক্তব্যে পারস‍্য উপসাগরীয় রাজতান্ত্রিক দেশগুলোর মধ্যে বিবাদ বেড়েছে।

শেয়ার করুন

0 comments: