বুধবার, আগস্ট ০২, ২০১৭

আমিরাত, সৌদি আরব, বাহরাইন ও মিশর আরো ১৮ ব্যক্তি ও সংগঠনকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে।তার মধ্যে ৯জন ব্যক্তি এবং ৯টি প্রতিষ্ঠান

যৌথ এক বিবৃতিতে তারা জানায়, "আমরা উগ্রবাদ, উগ্রবাদে অর্থায়ন বন্ধ, জড়িতদের আইনের আওতায় আনা, চরমপন্থী মতাদর্শ, ঘৃণাত্মক বক্তব্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ এবং ক্রমাগত মূল্যায়ন করে যাব
নতুন তালিকাভুক্ত ৯টি প্রতিষ্ঠান
- আল বালাগ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন (ইয়েমেন)
- আল ইহসান চ্যারিটেবল সোসাইটি (ইয়েমেন)
- রাহমা চ্যারিটেবল অর্গেনাইজেশান (ইয়েমেন)
- বেনগাজী রেভুলুশানারি শুরা কাউন্সিল (লিবিয়া)
- আল সারাইয়া মিডিয়া সেন্টার ( লিবিয়া)
- বুশরা নিউজ এজেন্সি ( লিবিয়া)
- রাফাল্লা সাহাতি ব্রিগেড ( লিবিয়া)
- নাবা টিভি (লিবিয়া)
- তানুশ ফাউন্ডেশান ফর দাওয়া, কালচার এন্ড মিডিয়া (লিবিয়া)   

 কালো তালিকাভুক্ত ৯ ব্যক্তি
১- বুনেইন আল সাইদ খালিদ (কাতার)
২- শাকর জুমা আল শাহওয়ানি (কাতার)
৩- সালেহ বিন আহমদ আল ঘানিম (কাতার)
৪- হামিদ হামাদ হামিদ আল আলী (কুয়েত)
৫- আবদুল্লাহ মোহাম্মদ আল ইয়াজিদি ( ইয়েমেন)
৬- আহমদ আলী আহমদ বারাউদ (ইয়েমেন)
৭- মোহাম্মদ বকর আল দাবা (ইয়েমেন)
৮- আল সাদি আবদুল্লাহ ইব্রাহিম বুখাযেম (লিবিয়া)
৯- আহমদ আব্দ আল জলিল আল হাস্নাওয়ি (লিবিয়া)

এই সকল ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের সরাসরি বা পরোক্ষভাবে কাতার সরকারের সাথে সম্পর্ক আছে। তিন কাতারি এবং এক কুয়েতি নাগরিক সিরিয়ায় আল নুসরা ফ্রন্ট এবং অন্য সন্ত্রাসী মিলিশিয়া  গ্রুপকে দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্নভাবে সহায়তা করে আসছে।
ইয়েমেনের তিন ব্যাক্তি এবং তিন প্রতিষ্ঠান কাতারি বিভিন্ন চ্যারিটেবল প্রতিষ্ঠানের প্রদত্ত অর্থ আল কায়েদাকে প্রদান করে আসছিল।
লিবিয়ার ২ ব্যক্তি এবং ৬ সন্ত্রাসী প্রতিষ্ঠান লিবিয়ার সন্ত্রাসী গ্রুপ গুলোর সাথে সম্পৃক্ত এবং তারাও কাতার এর বিভিন্ন কালো তালিকাভুক্ত ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান থেকে প্রাপ্ত অর্থ লিবিয়ার সন্ত্রাসী সংগঠনগুলিকে দিয়ে সন্ত্রাসে মদদ দিয়ে আসছিল।   




শেয়ার করুন

0 comments: