শুক্রবার, ডিসেম্বর ০১, ২০১৭

স্লিম দেহ ও পেট গড়তে এড়িয়ে চলুন ১০ খাবার


খাবারের কারণে আমরা অনেকেই মোটা হয়ে যাই। আর পেটে চর্বি জমে যাওয়া এক্ষেত্রে অন্যতম লক্ষণ।
এ লেখায় তুলে ধরা হলো ১০টি খাবারের কথা, যা পেটের চর্বি গড়তে সহায়তা করে। এ খাবারগুলো এড়িয়ে চললে স্লিম দেহ ও পেট গড়া সম্ভব।
১. অ্যালকোহলযুক্ত পানীয়
অনেকেই অ্যালকোহল পান করে দেহে বাড়তি মেদ নিয়ে আসেন। যদিও এ ধরনের পানীয় ত্যাগ করাই ভালো। স্বাস্থ্যসচেতনতার জন্যও এটি ক্ষতিকর। কারণ মস্তিষ্কের ওপর অ্যালকোহল প্রভাব বিস্তার করে এবং খাওয়ার পরেও আপনার পূর্ণতার অনুভূতি তৈরিতে বাধা দেয়। ফলে বেশি খাওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়।
২. কোমল পানীয়
অনেকেই কোমল পানীয় পানকে ক্ষতিকর নয় বলে মনে করেন। যদিও এতে থাকা চিনি কিংবা কৃত্রিম চিনি আপনার পেটের বাড়তি চর্বির জন্য দায়ী। এমনকি লো-ক্যালরি কোমল পানীয়ও ক্ষতিকর।
৩. চুইং গাম
আপনি যখন চুইং গাম চাবান তখন এটি আপনার মস্তিষ্কে সিগন্যাল দেয় যে, একটি খাবার আসছে। আর এজন্য আপনার ক্ষুধাও বেড়ে যায়। ফলে এটি বাড়তি খাওয়ার প্রবণতা তৈরি করে।
৪. বাড়তি লবণ
শুধু চিনি নয়, লবণও আপনার দেহের ওজন বাড়ানোর জন্য দায়ী। আর এ কারণে সর্বদা বাড়তি লবণ এড়িয়ে চলা উচিত বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। মূলত লবণ আপনার দেহের বাড়তি তরল বের হতে দেয় না, যা এক পর্যায়ে পেটের চর্বি বৃদ্ধি করে।
৫. অস্বাস্থ্যকর খাবার
ফাস্ট ফুড হিসেবে পরিচিত বেশ কিছু খাবার রয়েছে অস্বাস্থ্যকর তালিকায়। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে এসব খাবারের অতিরিক্ত ক্যালরি ও তেল-চর্বি আপনার দেহের আকৃতি নষ্ট করবে। তাই ফাস্ট ফুড এড়িয়ে চলুন।
৬. মেয়োনিজ

আপনি যদি মোয়োনিজ পছন্দ করেন তাহলে এ খাবারটি থেকে সতর্ক হোন। কারণ এ খাবারে ৮০ শতাংশ ফ্যাট রয়েছে। এক্ষেত্রে মেয়োনিজের বিকল্প হিসেবে টমেটো কেচাপ কিংবা অন্য কোনো খাবার বেছে নিন।
৭. ফ্রেঞ্চ ফ্রাই
আলুর মজাদার ভাজা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই। অনেকেই এতে ক্ষতিকর কিছু দেখেন না। যদিও এতে রয়েছে স্যাচুরেটেড ফ্যাট। আর এটি অন্যান্য ভাজা-পোড়া খাবারের মতোই ক্ষতিকর।
৮. আইসক্রিম
আইসক্রিমে রয়েছে প্রচুর চিনি। এছাড়া এতে রয়েছে আরও কিছু উপাদান, যা পেটের চর্বি তৈরির জন্য পরিচিত। তাই দেহে চর্বি জমাতে না চাইলে এটি ত্যাগ করুন।
৯. যে খাবারে আপনার গ্যাস হয়
অনেকেরই বিভিন্ন ধরনের খাবারের প্রভাবে পেট স্ফীত হয় কিংবা হজমে সমস্যা হয়। আপনার যদি কোনো খাবারে এ ধরনের প্রতিক্রিয়া হয় তাহলে তা বাদ দিন। অন্যথায় এ খাবারই আপনার জন্য ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়াবে।
১০. ‘সুগার ফ্রি’ খাবারের ফাঁদ

অনেক খাবারই মোড়কে ‘সুগার ফ্রি’ লেবেল লিখে রাখেন। যদিও এসব খাবার যে আপনার পেটের চর্বি কমাবে, এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে, মিষ্টি খাবার মানেই ক্ষতিকর। তা কৃত্রিম চিনি কিংবা প্রাকৃতিক চিনি যাই হোক না কেন।



শেয়ার করুন

0 comments: