বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৭

এবার ঐতিহ্যবাহী অ্যাশেজে ‘স্পট ফিক্সিং’ কলঙ্ক!

ক্রিকেটের সবচেয়ে আদি ও ঐতিহ্যবাহী আসর অ্যাশেজ সিরিজে এবার ‘স্পট ফিক্সিং’ এর মতো কলঙ্কের ছায়া পড়েছে! স্পট ফিক্সিং হতে পারে এমন অভিযোগের তথ্য পেয়ে ব্যাপারটিতে ‘গভীর উদ্বেগ’ জানিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।
ব্রিটিশ দৈনিক দ্য সান এক অনুসন্ধান চালিয়ে দুই ভারতীয় বাজিকরের সাথে গোপনে আলোচনা করেছে। যেখানে সোর্বেস জোবান ও প্রিয়ানাক সাক্সেনা নামে এ দু’জন দাবি করেছেন, জনপ্রিয় এই অ্যাশেজের পুরোটায় তারা প্রভাব বিস্তার করতে পারবে। যেমনএক ওভারে কত রান হতে পারে, সেটা নাকি বলে দিতে পারবেন তারা। যেখানে চলতি পার্থ টেস্টটাকেই নাকি লক্ষবস্তু করেন জুয়ারিরা।
তবে এই রিপোর্টে নির্দিষ্ট কোনো দল বা কোনো ক্রিকেটারের নাম উল্লেখ করা হয়নি।
সানের চার মাসে অনুসন্ধানে জানা যায়, দুই বাজিকর গোপনভাবে অস্ট্রেলিয়ান খেলায় একজন ‘সাইলেন্ট ম্যান’ এর সঙ্গে ম্যাচ পাতিয়ে আসছেন।
সাবেক বয়স ভিত্তিক ক্রিকেটার জোবান ও টোবাকো ব্যবসায়ী এবং বাজিকর সাক্সেনা দাবি করেন, ক্রিকেটারদের সঙ্গে তারা সংকেত দিয়ে কাজ করেন ফিক্সিং করতে। যেখানে তারা বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে, যেমন গ্লাভস পরিবর্তন করে থাকে।
প্রতিবেদনে জানা যায়, ক্রিকেটের এই জুয়াতে ১ লক্ষ ৮৭ হাজার মার্কিন ডলারের মতো ব্যবহার হচ্ছে বা হয়েছে। তবে ইতোমধ্যে এ বিষয়ে তদন্তে নেমেছে আইসিসি
সানের গোপন সংবাদদাতাকে জোবান বলেছেন, ‘আমি অ্যাশেজে আপনাকে কাজ করে দেখাবো। সেশনে রান, হয়তো প্রথম, দ্বিতীয় অথবা তৃতীয় দিনে। আমরা দুই সেশন কাজ করি, এক সেশনে খরচ পড়ে ৬০ লাখ রুপি (ভারতীয়), দুই সেশনে ১ লাখ ২০ হাজার রুপি।’
তিনি আরও বলেন, ‘আপনি যদি আগ্রহী হন তবে প্রিয়ানাক সেই সাইলেন্ট ম্যানের সঙ্গে কথা বলবে। আপনি যদি তার সঙ্গে যেতে চান সমস্যা নেই, তবে মিটিংয়ে বসতে পারবেন না। আমি জানি না সে (সাইলেন্ট ম্যান) কি দেয়, স্ক্রিপ্ট অথবা সেশন।’
এদিকে আইসিসির এন্টি করাপশন ইউনিটের জেনারেল ম্যানেজার অ্যালেক্স মার্শাল জানিয়েছেন, পার্থ টেস্টে
অ্যাশেজ সিরিজে ‘স্পট ফিক্সিং' করেন বলে দাবি জোবান ও প্রিয়ানাকের-ছবি:সংগৃহীত
ফিক্সিং অভিযোগের কোনো প্রমাণ বা দলিল পাননি তারা।
বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) পার্থে তৃতীয় টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। পাঁচ ম্যাচের এ সিরিজে ২-০তে এগিয়ে রয়েছে অজিরা।

শেয়ার করুন

0 comments: