শনিবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭

বিজয়ের স্বাদ: আমাদেরও আছে কিছু করণীয়।

দেশের খবর ডেস্কঃআজ মহান বিজয় দিবস। বাঙালির জন্য আরেকটি আনন্দের দিন। কিন্তু এই আনন্দ আর্জন করতে এই জাতিকে কতটুকু ত্যাগ করতে হয়েছে সে কথা সবারই জানা। সেই ত্যাগদের কতটুক মূল্যায়ন আমরা করতে পারছি? কথায় আছে-স্বাধীনতা অর্জনের ছেড়ে রক্ষা করা কঠিন।
আমরা লাখ শহীদের ত্যাগের বিনিময়ে আমরা যে বিজয় অর্জন করেছি তার কতটুকু আমরা আজ রক্ষা করতে পারছি? স্বাধীনতা রক্ষার দ্বায়িত্ব শুধু সরকারের নয়,আমাদেরও। প্রতিটি ব্যক্তি তার নিজ নিজ অবস্থান থেকে যদি সঠিক পথে চলে তাহলে বিজয়ের স্বাদ আমরা পাব।
আমি যদি দেশকে সুন্দর রাখতে চাই, চিপস খেয়ে প্যাকেটটা রাস্তায় ফেলানোর আগে ভাবতে হবে আমি কি আমার স্বদেশকে নোংরা করতে পারি? রাস্তার ধারে থুথু ফেলানোর আগে ভাবতে হয়- এইটা কারো কারো বিচানা, আমি কি তা নোংরা করতে পারি? প্রকাশ্যে ধূমপান করার আগে আমাকে ভাবতে হবে- আমি কি নিজের পাশাপাশি অন্যের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারি? প্রশ্ন ফাঁশ করা ব্যাক্তিগুলো ভাববে-আমি কি আমার স্বদেশের মেরুদন্ড এইভাবে ভেঙ্গে দিতে পারি? মন্ত্রী ঘুষ নেওয়ার আগে ভাববে-আমি কি আমার জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতির খেলাপ করতে পারি?
স্বাধীনতা মানে দিবসে দিবসে দেশের গান বাজিয়ে যাওয়া নয়। স্বাধীনতা মানে বছরের ৩৬৪ দিন অবহেলায় পড়ে থাকা শহীদ মিনার ১ দিন পরিষ্কার করা নয়।স্বাধীনতা মানে একদিকে অবৈধ টাকার ছড়াছড়ি আরেক দিকে রাস্তায় কষ্টে জীবন যাপন করা কুলি মজুর নয়।
বিজয়ের স্বাদ পেতে চাই দেশের প্রতি ভালোবাসা, দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা। যে ভালোবাসা আমাকে রাস্তার ধারে পড়ে থানা জীর্ণ শীর্ণ মানুষটাকে ভালোবাসতে শিখাবে, যে ভালোবাসা আমাকে প্রতিদিন একটু একটু যত্ন করতে শিখাবে শহীদ মিনার, সৃস্মিসৌধকে। যে ভালোবাসা আমাকে শিখাবে ব্যক্তি ব্যক্তি, দলে দলে হানাহানি নয়, বরং দেশের স্বার্থটাই উর্ধে।
তাই আসুন প্রতি বছর শুধুমাত্র একদিন বিজয় দিবস উদযাপন না করে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশের জন্য কিছু করি।আমাদের ছোট ছোট ভালো কাজগুলোই আমাদের বিজয়ের স্বার্থকতা।

শেয়ার করুন

0 comments: