বুধবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭

সারাদিন ডেস্কে বসেও শরীরকে রাখুন সুস্থ

যারা অফিস ডেস্কে কাজ করেন তাদের বেশিরভাগ সময় বসেই কাটাতে হয়। এমন কি অনেকে ৮-১০ ঘণ্টা টানা চেয়ারেই বসে থাকেন। এবং তারা নিজের অজান্তেই নিজেদের অনেক ক্ষতি করে চলছেন। সারাদিন একভাবে চেয়ারে বাঁকা হয়ে বসে থাকার ফলে অনেকেই হয়ে পড়েন অসুস্থ। পিঠে ব্যথা, মেরুদণ্ডে সমস্যা, ঘাড়ের ব্যাথা এমন নানাবিধ নিত্যনতুন অসুখ বাসা বাঁধে মানুষের শরীরে কেবল অফিসের ডেস্কে অনেকটা সময় কাটানোর কারণেই। আপনিও কি এমন কোনো কাজ করেন? অফিসে সারাদিন একটা ছোট্ট চেয়ারের ভেতরে বসে থাকা আর সামনের ফাইল কিংবা কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে থাকার বাইরে খুব কম কাজই করা হয়। এমনকি শরীরকে বাড়তি একটু হাঁটাচলা বা ব্যায়ামের সুযোগ দেওয়ারও সময় মেলেনা। তাহলে চলুন আজ জেনে নেই এমন কিছু উপায়ের কথা যার মাধ্যমে অফিসে সারাদিন ডেস্কে বসে থেকেও নিজেকে সুস্থ রাখতে পারবেন আপনি আর সবার মতন!
অফিসের গন্তব্য হেটে পার করুন


আপনার অফিস ঠিক কতটা দূরে আপনার বাসা থেকে? যদি খুব একটা বেশি দূরে না হয় তাহলে অফিসে যাওয়ার সময় বাইক বা সাইকেল কিংবা রিকশার সাহায্য না নিয়ে হেটে যান। এতে করে আপনার আবড়তে খরচ বাচবে, সেইসাথে খানিক্ষণ শরীরচর্চাও হবে।


শরীর টানটান করুন

হয়তো আপনি একটি স্থানেই বসে আছেন। কিন্তু তাতে কী? একটু পরপর নিজের শরীরকে টানটান করুন। পা ছড়িয়ে দিন খানিক্ষণ। হাতদুটোকে নাড়িয়ে নিন। কিংবা নিজের বসার ভঙ্গী পাল্টান। এতে করে একটানা বসে থাকার চাপ কমে যাবে।

প্রতি ঘণ্টায় বিরতি নিন

প্রতি ঘণ্টায় নিজের মতন করে খানিকটা বিরতি নিন। নিজের শরীর আর মন তো বটেই, এই প্রক্রিয়ায় আপনি আপনার কাজটুকুও অনেক সঠিক আর সম্পূর্ণভাবে শেষ করতে পারবেন। ২০০৮ সালে পাওয়া এক গবেষণানুসারে, একটানা কাজ করলে মানুষের লক্ষ্য ও কাজের গতি কমে যায়। তাই আর একটানা কাজ নয়। প্রতি ঘণ্টা কাজের শেষে ৫ মিনিট বিশ্রাম দিন নিজেকে। নিজে সুস্থ থাকুন, কাজকেও নিখুঁত করে তুলুন।

এলিভেটর বা লিফটকে না বলুন

আপনার অফিস ঠিক কতো তলায়? চেষ্টা করুন প্রতিদিন অফিসে যাওয়ার জন্য লিফট বা এলিভেটর ব্যবহার না করে সিঁড়ি ব্যবহার করতে। এতে করে আপনার শরীরচর্চা হয়ে যাবে, সেইসাথে চলে যাবে বসে থাকার একঘেয়েমিও।

সময় পেলেই হাঁটুন

অফিসে আমাদেরকে অনেকে কল করে আর সেসময় আমরা অন্য কোনো কাজেও ব্যস্ত থাকিনা। তাই কারো সাথে ফোনে বা সামনাসামনি কথা বলতে গেলে চেয়ার থেকে উঠে পড়ুন আর ততক্ষণ হাঁটুন যতক্ষণ না আপনার কথা শেষ হচ্ছে। এতে করে আপনার সময় নষ্ট হবেনা আর শরীরও সুস্থ থাকবে।

লাঞ্চ ব্রেককে কাজে লাগান

লাঞ্চের ব্রেক হতে পারে আপনার অনেকটা বেশি সময় বসে থাকার কারণে শরীরে পড়া চাপ কমানোর সবচাইতে মোক্ষম উপায়। তাই লাঞ্চ ব্রেক হলেই বেরিয়ে পড়ুন। ঘরের খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যকর। তবে যদি সম্ভব হয় তাহলে একটু দূরে গিয়ে খাবার খান যেখানে যেতে আপনাকে একটু হাঁটতে হয়। কিংবা খানিকটা হাঁটাহাঁটি করে নিন লাঞ্চের পর কিংবা আগে। এতে করে খাবার হজম হবে দ্রুত, সেইসাথে আপনার শরীরের উপরে বেশীক্ষণ বসে থাকার প্রভাব পড়বে না।

টেবিল কিংবা চেয়ারকে বদলে ফেলুন

বর্তমান সময়ে অনেক রকমের নতুন চেয়ার পাওয়া যাচ্ছে যেগুলো আপনাকে পিঠের ব্যথা থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করতে পারে। সেগুলো ব্যবহার করুন। সেইসাথে টেবিলকেও আপনার হিসেব মতন ঠিকঠাক করে নিতে পারেন ইচ্ছে হলে। কারণ আপনার বেশিক্ষণ বসে থাকার চাইতে আপনার বসার স্টাইল অনেকসময় শরীর খারাপের কারণ হয়ে উঠতে পারে।

শরীরের বাড়তি মেদ ঝড়িয়ে ফেলুন

উপরের সবগুলো জিনিস তো আছেই, তবে অফিসের ভেতরে চেয়ারে বসে থাকার ফলে যে আরেকটি অত্যন্ত বাজে সমস্যা তৈরি হয় সেটা হল শরীরে চর্বি জমে যাওয়া আর সেখান থেকে নানারকম অসুখের জন্ম নেওয়া। তাই চেষ্টা করুন প্রচুর পরিমান পানি পান করতে। সেইসাথে সুযোগ পেলেই খানিকটা শরীরচর্চা করে নিন যাতে করে কোনরকম মেদ শরীরে না জমে যায়।

তথ্য সূত্র: বিএইচপি


শেয়ার করুন

0 comments: