মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৭

এই ট্রফিটাই মাশরাফিকে চায়!

বিজ্ঞাপনের ভাষাতেই বলা যাক—
বিপিএল জিততে চাও? তবে মাশরাফিকে অধিনায়ক বানাও! একটি টুর্নামেন্ট পাঁচবারে চারবারই জেতেন যে অধিনায়ক, তাঁর ক্ষেত্রে তো এটাই সত্য। শুধু ২০১৬ ব্যতিক্রম, বাকি সব বিপিএলেই মাশরাফি বিন মুর্তজা নেতৃত্বে থাকা মানেই সে দলের শিরোপা উৎসব। তিনটি ভিন্ন দলের হয়ে চারবারের মতো বিপিএলের ট্রফি জিতলেন অধিনায়ক মাশরাফি।
২০১২ বিপিএল দিয়েই শুরু হয়েছে সব। সেবার নিজেদের আইকন হিসেবে মোহাম্মদ আশরাফুলকে বেছে নিয়েছিল ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস। চোটের সঙ্গে লড়তে থাকা মাশরাফিকে কেনার প্রতি কারও খুব একটা আগ্রহ না থাকায় প্রাথমিক মূল্যেই কিনে ফেলেছিল ঢাকা। সেই মাশরাফিকেই দলের নেতৃত্ব তুলে দেয় তারা। ফলাফল? প্রথমবারে শিরোপা উৎসব ঢাকার।

দ্বিতীয় বিপিএলেও মাশরাফিতে ভর করে ঢাকার শিরোপা উৎসব।
২০১৩ সালে সাকিব আল হাসানকে দলে টানল ঢাকা। সেবার ম্যাচ পাতানোর বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটিয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতার ভবিষ্যৎ প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছিল ঢাকা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য মাশরাফির নেতৃত্বে আরও একবার শিরোপা জিতেছিল দলটি।
২০১৫ সালে নতুন করে নতুন চেহারায় হাজির হয়েছিল বিপিএল। মাশরাফিও দল পরিবর্তন করে এলেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসে। দল বদলেছিল ঠিক কিন্তু বিপিএল ভাগ্য নয়। তুলনামূলক দুর্বল দল নিয়েও কুমিল্লাকে সেবার নেতৃত্বগুণে শিরোপা এনে দিয়েছেন ‘ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাস্টিক’!

কুমিল্লাকে প্রথম শিরোপা জিতিয়ে হ্যাটট্রিক হয়ে গেল মাশরাফির।
মাঝখানে এক বছরের বিরতি। ২০১৭ সালেও নতুন এক দলের দায়িত্ব নিতে হলো মাশরাফিকে। রংপুর রাইডার্সকে শিরোপা এনে দেওয়ার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। টুর্নামেন্টের শুরুতে যে কাজটা প্রায় অসম্ভব বলে মনে হচ্ছিল। কিন্তু ব্যাটে-বলে মাশরাফি নিজেই দলকে পথে রাখলেন মাঝপথে। আর শেষ দিকে গেইলরা বাটনটা হাতে তুলে নিলেন। তাতেই প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠেই শিরোপা উৎসব রংপুরের।

শেয়ার করুন

0 comments: