শুক্রবার, ডিসেম্বর ০১, ২০১৭

ভারতের কাছে ৭ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি পিসিবির

ভারত-পাকিস্তান বৈরিতা দুই দেশের সীমানা ছাড়িয়ে ক্রিকেট মাঠে প্রবেশ করেছে অনেক আগেই। দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডও শামিল হয়েছে এই যুদ্ধে। দ্বিপক্ষীয় সিরিজ না খেলার অভিযোগ এনে আইসিসির কাছে বিরোধ নিষ্পত্তির নোটিশ পাঠিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) কাছে ৭ কোটি ডলার (৫৭৭ কোটি টাকা) ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে পিসিবি।
তিন বছর আগে ২০১৪ সালের এপ্রিলে বিসিসিআই ও পিসিবি দুটি সিরিজ খেলার চুক্তি করেছিল। সে বছর নভেম্বরে একটি ও তার পরের বছর ডিসেম্বরে আরও একটা সিরিজ খেলার কথা ছিল। কিন্তু একটি সিরিজও খেলেনি ভারত। বিরোধের নোটিশ পাঠানোর মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করল পিসিবি। এ বছর মে মাসে আইসিসিকে প্রথম নোটিশ দিয়েছিল তারা।
দুই বোর্ড বেশ কয়েকবার মুখোমুখি বসেও বিরোধের সুরাহা করতে পারেনি। উল্টো সর্বশেষ গ্রীষ্মে ইংল্যান্ডে দুই বোর্ডের মিটিংয়ে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয়েছে। সে সময়কার আইসিসির চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর তখন বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। প্রাথমিক চুক্তিতে বলা ছিল, ২০১৫ থেকে ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মাঝে ছয়টি সিরিজ খেলার কথা এই দুই দলের। ২০১৪ সালের নভেম্বরে পাকিস্তানের মাটিতে অথবা কোনো নিরপেক্ষ ভেন্যুতে সীমিত ওভারের সিরিজ খেলার কথাও ছিল।
দুই সরকারের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হওয়ায় এই মুহূর্তে সিরিজগুলো হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। ভারত সরকার এই মুহূর্তে দেশে কোনো পাকিস্তানি আনতে চায় না। বিসিসিআইও এই অজুহাতে হাত-পা গুটিয়ে নিয়েছে। পিসিবির রাগের কারণটা অবশ্য স্বাভাবিক। উপমহাদেশের তিন দল বাংলাদেশ, ভারত ও শ্রীলঙ্কা ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে। অথচ বর্তমান চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপাজয়ীরা চুক্তিবদ্ধ হয়েও খেলোয়াড়দের ম্যাচ অনুশীলন করাতে পারছে না। জরিমানার পাশাপাশি পিসিবি বাকি ২৪টি ম্যাচ খেলার দাবিও জানিয়েছে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ৯টি, ২০২০-এর আগস্টে ১০টি এবং ২০২২ সালের নভেম্বর ডিসেম্বরে বাকি ৫ ম্যাচ খেলতে চায় তারা। সূত্র: ক্রিকইনফো।

শেয়ার করুন

0 comments: