মঙ্গলবার, জুলাই ২৪, ২০১৮

উজ্জীবিত করেছেন মাশরাফি


ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিনি যাবেন কিনা তা নিয়েই ছিল ঘোর সংশয়। অসুস্থ স্ত্রী সুমনা হককে দেশে রেখে ওয়েস্ট ইন্ডিজে যেতে চাইছিলেন না ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। তখন সুমনাই মাশরাফিকে বলেছিলেন, ‘আমার কিছু হবে না, আমি সুস্থ হয়ে যাব। তুমি ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাও।’

স্ত্রীর শারীরিক অবস্থা একটু ভালো হলে মাশরাফি ওয়েস্ট ইন্ডিজ যান। যাওয়ার আগে এক সপ্তাহের বেশি সময় অনুশীলন করতে পারেননি। অ্যান্টিগায় একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচেও তার খেলা হয়নি। কিন্তু মাশরাফি দলে যোগ দিতেই সাদা পোশাকের বিবর্ণ বাংলাদেশ যেন রাতারাতি রঙিন পোশাকে উজ্জ্বল হয়ে উঠল। উজ্জ্বল তার নিজের বোলিং পারফরম্যান্সও।

রোববার গায়ানায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে উইন্ডিজকে ৪৮ রানে হারিয়ে ১-০-তে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। দুঃস্বপ্নের টেস্ট সিরিজের পর হতাশায় ডুবে থাকা দলকে উজ্জীবিত করার রহস্যটা ম্যাচ শেষে মাশরাফি নিজেই জানালেন, ‘সবাইকে বলেছিলাম মন উজাড় করে খেলতে, দেশের জন্য খেলতে। টেস্ট সিরিজে যা হয়ে গেছে সেটা তো আর ফিরবে না। নতুন আরেকটা সিরিজের শুরুটা ভালো করতে পারলে সব ঠিক হয়ে যাবে। প্রথম ম্যাচে সেটাই করতে পেরেছে ছেলেরা। আশা করি এই পারফরম্যান্স আমরা ধরে রাখতে পারব।’

ম্যাচের শুরুতে উইকেট কেমন হতে পারে সেটা অনুমান করা ছিল বেশ কঠিন। তাই টস জিতে ব্যাটিং নাকি ফিল্ডিং নেবেন তা নিয়ে সংশয়ে ছিলেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘উইকেট বুঝতে পারা খুবই কঠিন ছিল। ব্যাটিং নেয়ার পরও তাই চিন্তায় ছিলাম। শুরুতে যদি আমাদের আরও দু-একটা উইকেট পড়ে যেত তাহলে কাজটা অনেক কঠিন হয়ে যেত। কিন্তু উইকেটের সঙ্গে মানিয়ে দারুণ ব্যাটিং করেছে সাকিব ও তামিম।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আগে কী করেছি সেটা মনে করে খেললে আমাদের জন্য কঠিন হবে না জানতাম। আমরা দৃঢ়তা দেখিয়েছি। সেটা আরও আগে দেখানোর দরকার ছিল। এখন দেখিয়েছি যখন তখন সেটা ধরে রাখাই হবে গুরুত্বপূর্ণ।’

২০০৭ বিশ্বকাপে এই মাঠেই বাংলাদেশ হারিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে। মাশরাফি বলেন, ‘২০০৭ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের স্মৃতি এখনও মনে আছে। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলছি। এখানকার উইকেট আমাদের ধরনের সঙ্গে বেশ মানিয়ে যায়। আমি চেয়েছিলাম শুরুতেই গেইল ও লুইসকে আউট করতে। সেটা করতে পেরেছি। এরপর চাপটা ধরে রাখতে পেরেছি।’

বেশ কিছুদিন অনুশীলনের বাইরে থাকলেও প্রথম ম্যাচে তার কোনো প্রভাব পড়তে দেননি মাশরাফি। দারুণ বোলিংয়ে ৩৭ রানে নিয়েছেন চার উইকেট। কাজে লাগিয়েছেন তার অভিজ্ঞ

শেয়ার করুন

0 comments: