বুধবার, জুলাই ২৫, ২০১৮

বিশ্বকাপের পর নেইমারের জনপ্রিয়তায় ধস


বিশ্বকাপে ভালো খেলতে পারেননি নেইমার। মাঠে বারবার পড়ে যাওয়ায় সমালোচনাও হয়েছে তাঁকে নিয়ে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেইমারের ইমেজে ব্যাপারটা নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। ভাটা পড়েছে তাঁর জনপ্রিয়তায়।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে মেসি-রোনালদোর সঙ্গে উচ্চারিত হয়েছে তাঁর নাম। কিন্তু বিশ্বকাপের পর কি পতনের ঘণ্টা শুনতে পাচ্ছেন নেইমার? চোটের কারণে এমনিতেই মৌসুমের অর্ধেক মিস করে ফিফার বর্ষসেরা পুরস্কারের সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা মেলেনি। এবার জানা গেল, বিশ্বকাপে ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ডের বাজে পারফরম্যান্স সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁর ইমেজেও বেশ নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেইমারকে নিয়ে এমনিতেই অনেক আলোচনা হয়। বিশ্বকাপে তাঁর ‘ডাইভ’ দেওয়ার প্রবণতা নিয়ে ভীষণ সমালোচনা চলছে। ব্যাপারটি নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে নেইমারের ইমেজে। এতে তাঁর জনপ্রিয়তা বেশ নেমে গেছে বলে তথ্য-উপাত্ত দিয়ে জানিয়েছে ইংল্যান্ডের তথ্য ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান ‘ক্যান্টর স্পোর্টস’। এক গবেষণায় তাঁরা বিষয়টি পরিষ্কার করেছে।

বিশ্বকাপ শুরুর দুই সপ্তাহ আগে (১ জুন) থেকে বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার তিন দিন পর (১৮ জুলাই) পর্যন্ত গবেষণার সময় বেছে নিয়েছিল ‘ক্যান্টর স্পোর্টস’। এ সময় তাঁরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেইমারকে নিয়ে সব ধরনের পোস্ট পর্যালোচনা করেছে। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলেছে ব্রাজিল। এ ম্যাচের আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেইমারকে নিয়ে মাত্র ২৮ শতাংশ পোস্ট ছিল নেতিবাচক। কিন্তু ম্যাচটির পর তা বেড়ে দাঁড়ায় ৬১ শতাংশে। শেষ আটে ব্রাজিল ছিটকে পড়ার পর নেইমারকে নিয়ে এই নেতিবাচক পোস্টের হার ছিল সর্বোচ্চ ৬৮ শতাংশ।

বিশ্বকাপে নেইমার মাঠে নামার আগে তাঁকে নিয়ে ৫১ শতাংশ পোস্ট ছিল নিরপেক্ষ। প্রশংসা করে ২১ শতাংশ পোস্ট হয়েছে। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে হেরে যাওয়ার পর নেইমারের প্রশংসাসূচক পোস্ট নেমে এসেছে তলানিতে—মাত্র ১ শতাংশ! এই গবেষণায় তারা আরও জেনেছে, নেইমারকে নিয়ে প্রতি ১০০ পোস্টের মধ্যে গড়ে মাত্র ১টি ছিল ইতিবাচক। আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেইমারকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হয়েছে তাঁর জন্মভূমি ব্রাজিলে! এরপর হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, মেক্সিকো, ফ্রান্স ও ইংল্যান্ডে।

শেয়ার করুন

0 comments: