বুধবার, আগস্ট ১৫, ২০১৮

বার্সেলোনায় যাচ্ছেন না পগবা


পল পগবা বার্সেলোনায় যেতে পারেন। বাজারে এমনই গুঞ্জন। সার্জিও বুসকেটস, রাকিটিচ, কুতিনহোসমৃদ্ধ মাঝমাঠে নাকি ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী মিডফিল্ডারকেও দরকার বার্সেলোনার। তবে সাবেক ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ওয়েস ব্রাউনের আশা, পগবা বর্তমান দলেই থাকবেন।

বার্সেলোনা চাইলে এখন মিডফিল্ডার দিয়েই দল সাজিয়ে নিতে পারে। দলে যে এখন প্রায় দশ-এগারোজন মিডফিল্ডার। তবু নাকি সন্তুষ্ট নয় তারা। দুই বছর আগেই দলবদলের বিশ্ব রেকর্ড গড়া পল পগবাকেও নাকি চাই তাদের! সার্জিও বুসকেটস, রাকিটিচ, কুতিনহোসমৃদ্ধ মাঝমাঠে নাকি ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী মিডফিল্ডারকেও দরকার বার্সেলোনার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক খেলোয়াড় ওয়েস ব্রাউনের আশা, পগবা বর্তমান দলেই থাকবেন।

এবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দলবদলের বাজার বন্ধ হয়ে গেছে ৯ আগস্ট। তবে ইউরোপের অন্য লিগে ইংলিশ লিগ থেকে খেলোয়াড় যেতে বাধা নেই। কিন্তু নতুন করে কোনো খেলোয়াড় দলে টানার সুযোগ নেই তাদের। ফলে পগবার মতো কোনো খেলোয়াড়কে ছাড়া কথা ভুলেও ভাববে না কোনো দল। কিন্তু কোচ হোসে মরিনহোর সঙ্গে পগবার সম্পর্কের অবনতি গুঞ্জনের পাল্লা ভারী করেই চলেছে। লেস্টারসিটির বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে জয়ের পরও সুর বদলায়নি পগবার। বলেছেন, সবকিছু বলা যায় না। বললে জরিমানা গুনতে হবে!

সাবেক ইউনাইটেড ডিফেন্ডার ব্রাউন তবু আশা করছেন পগবা দল বদলাবেন না। নতুন মৌসুমে নতুনভাবে নিজেকে মেলে ধরবেন। আমাদের প্রতিনিধির সঙ্গে কথোপকথনে ব্রাউন জানান, ‘পগবা থাকছে। সে একজন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড খেলোয়াড়। শুক্রবার (১০ আগস্ট) দলের অধিনায়ক ছিল সে। পেনাল্টি থেকে একটা গোল করেছে, দারুণ একটা বিশ্বকাপ কাটিয়েছে। আমি আশা করছি সে এটা ধরে রাখতে পারবে এবং ইউনাইটেডের হয়ে দুর্দান্ত এক মৌসুম কাটাবে।’

এ মৌসুমে নিজের পছন্দ অনুযায়ী খেলোয়াড় কিনতে পারেননি বলে বেশ শোরগোল ফেলে দিয়েছেন কোচ হোসে মরিনহো। দলে রাশফোর্ড, মার্শিয়ালদের মতো খেলোয়াড়দের ব্যবহার না করে আরও নতুন খেলোয়াড় কেনার চেষ্টা ইউনাইটেডের বোর্ডের কাছে অনুমোদন পায়নি। এর মাঝেও মিডফিল্ডে ব্রাজিলিয়ান ফ্রেডকে কিনেছে ইউনাইটেড। ব্রাউনের আশা, ফ্রেডের আবির্ভাব পগবার খেলায় উন্নতি আনবে আর এটাই পগবাকে ক্লাব ছাড়ার কথা ভুলিয়ে দেবে, ‘এ মৌসুমে হয়তো তাকে আরেকটু স্বাধীনতা দেওয়া হবে। বিশেষ করে ফ্রেড এসেছে, নেমানজা মাতিচও আছে। ফ্রেডকে দেখে মনে হচ্ছে সে মাঠের চারদিকে ঘুরতে পারে। সে রক্ষণাত্মক খেলতে পছন্দ করে, এর মানে পগবাও আক্রমণে যেতে পারবে বেশি। আমাদের আরেকটু দেখতে হবে। এভাবে আসলেই খেলবে কি না কিংবা সে আরও রক্ষণাত্মক হয় নাকি আক্রমণাত্মক হয় সেটা বলার সময় এখনো হয়নি (মৌসুম শুরু হয়েছে মাত্র)।’

লেস্টার ম্যাচের পর পগবা-স্তুতিতে মুখে খই ফুটিয়েছেন কোচ মরিনহো। কিন্তু গত দুই মৌসুম ধরে জমা হওয়া ক্ষোভ ভুলে খেলায় মনোযোগ দেবেন পগবা? বিশেষ করে বার্সেলোনার মতো ক্লাব যখন হাতছানি দিচ্ছে তাঁকে?

শেয়ার করুন

0 comments: