শনিবার, আগস্ট ১১, ২০১৮

অস্ট্রেলিয়ার স্পনসর ভিসায় নতুন প্রশিক্ষণ ফি


অস্ট্রেলিয়ার স্পনসর ভিসাগুলোর খরচ বাড়তে চলেছে কাল রোববার ১২ আগস্ট থেকে। বিদেশি কর্মী নিয়োগ দিতে হলে ভিসা ফির সঙ্গে নতুন আইনে প্রশিক্ষণ ফি জমা দিতে হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকারের ‘দ্য স্কিলিং অস্ট্রেলিয়া ফান্ড’ (এসএএফ)। টেম্পোরারি স্কিল শর্টেজ (টিএসএস) সাবক্লাস ৪৮২, এমপ্লয়ার নমিনেশন স্কিম (ইএনএস) সাবক্লাস ১৮৬ ও রিজওনাল স্পনসরড মাইগ্রেশন স্কিম (আরএসএমএস) সাবক্লাস ১৮৭ ভিসার ওপর নতুন এ আইন জারি করা হয়েছে। নতুন আইনের আগে এ ভিসাগুলোয় বিদেশি কর্মী নিয়োগের একটি আবশ্যিক শর্ত ছিল ট্রেনিং বেঞ্চমার্ক। অর্থাৎ, ব্যবসার মোট বেতন বাবদ খরচের ১ শতাংশ সরাসরি অথবা ২ শতাংশ নির্ধারিত প্রতিষ্ঠানে অস্ট্রেলীয় কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য খরচ করতে হতো। তবে সে ট্রেনিং বেঞ্চমার্কের পরিবর্তে ভিসা আবেদনের সঙ্গেই নির্দিষ্ট প্রশিক্ষণ খরচ জমা দেওয়ার আইন পাস হয়েছে। মনোনয়ন ভিসা আবেদনের সময় স্পনসরকেই এ ফি প্রদান করতে হবে।

নতুন এই প্রণীত আইন হলো

ছোট ব্যবসা অর্থাৎ বাৎসরিক আয় ১০ মিলিয়ন ডলারের কম হলে, টিএসএস ভিসায় নমিনেশন আবেদনের সময় প্রতি বছরের জন্য ১ হাজার ২০০ ডলার দিতে হবে। দুই বছরের জন্য হলে ২ হাজার ৪০০ ডলার ও চার বছরের জন্য হলে ৪ হাজার ৮০০ ডলার। আর ইএনএস ও আরএসএমএস–এর জন্য ভিসা প্রতি ৩ হাজার ডলার প্রশিক্ষণ ফি দিতে হবে।

বাৎসরিক আয় ১০ মিলিয়ন ডলারের বেশি হলে, টিএসএস ভিসার জন্য বছর প্রতি ১ হাজার ৮০০ ডলার এবং ইএনএস ও আরএসএমএস–এর ভিসা প্রতি ৫ হাজার ডলার প্রশিক্ষণ ফি বাবদ জমা প্রদান করতে হবে।

অস্ট্রেলিয়ার ভেতরের ব্যবসার ক্ষেত্রে বাৎসরিক আয় বলতে নমিনেশন আবেদন জমার সাম্প্রতিক বছরের মোট সাধারণ আয় এবং অস্ট্রেলিয়ার বাইরে ব্যবসা হলে সে দেশের সাম্প্রতিক অর্থ বছরের মোট সাধারণ আয় গণ্য করা হবে।

এ ছাড়া, শুধুমাত্র অস্ট্রেলিয়ার সরকারের সঙ্গে শ্রম চুক্তি রয়েছে এমন ব্যবসা ও ধর্মীয় পেশার ভিসা এ আইনের আওতায় পড়বে না। ভিসা মঞ্জুর না হলে ক্ষেত্রবিশেষে প্রশিক্ষণ ফি ফেরত দেওয়া হবে। ৪৫৭ ভিসাধারী যাদের নতুন নমিনেশন নিতে হবে অথবা পরিবর্তন করতে হবে তাদের জন্য এ ফি প্রযোজ্য হবে।

কাউসার খান: অভিবাসন আইনজীবী, সিডনি, অস্ট্রেলিয়া। ইমেইল: <immiconsultants@gmail.com>

শেয়ার করুন

0 comments: