বৃহস্পতিবার, মে ০৭, ২০২০

মধ্যপ্রাচ্যের কোন কোন দেশে শিথিল হচ্ছে লকডাউন?


ইরান
সারা বিশ্বের মধ্যে করোনায় অন্যতম সর্বোচ্চ ভুক্তভোগী ইরান। ইতোমধ্যেই সেখানে ছয় হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন, আক্রান্ত প্রায় এক লাখ। তবে গত কয়েকদিনে সংক্রমণের হার কিছুটা কমে আসায় বেশ কিছু এলাকায় লকডাউন শিথিল করে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান চালু ও মসজিদ খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার।
গতকাল ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি জানিয়েছেন, সোমবার থেকেই দেশটির ১৩২টি কাউন্টিতে অর্থাৎ প্রায় এক তৃতীয়াংশ প্রশাসনিক জেলায় মসজিদ খুলে দেয়া হচ্ছে। তবে এই মুহূর্তে জামায়াতে নামাজ আদায়ের চেয়ে সুরক্ষা ব্যবস্থা জরুরি বলে সবাইকে সাবধানতা মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
জর্ডান
রোববার থেকে ব্যবসায়িক কার্যক্রমের ওপর সবধরনের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে জর্ডান। দেশটির শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এখন থেকে সব শিল্প কারখানা পুরোদমে উৎপাদন চালিয়ে যেতে পারবে।
সুরক্ষা ব্যবস্থা মেনে গণপরিহনও চালু হয়েছে জর্ডানে। তবে স্কুল-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধই থাকছে। এছাড়া রাত্রিকালীন কারফিউও জারি থাকবে।
বাহরাইন

মুসলিমদের পবিত্র মাস রমজান শুরু হতেই কিছু নিষেধাজ্ঞা শিথিল করেছে বাহরাইন। তবে বাইরে গেলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে দেশটিতে।
এর আগে গত ৯ এপ্রিল থেকেই কিছু দোকানপাট ও শপিংমল খুলে দিয়েছে বাহরাইন সরকার।
সংযুক্ত আরব আমিরাত
আমিরাতে সীমিত সংখ্যক ক্রেতা রাখার শর্তে কিছু শপিংমল খুলে দেয়া হচ্ছে। গত শনিবার আবুধাবির তিনটি শপিংমলে শারীরিক তাপমাত্রা মেপে ৩০ শতাংশ ক্রেতা প্রবেশ করতে দেয়া হয়।
এর পরেরদিন থেকে শারজাহ শহরেও শপিংমল, সেলুন, খাবারের দোকানের মতো ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলো ফের চালু হয়েছে।
দেশটিতে বাণিজ্যিককেন্দ্রগুলো খোলা থাকবে স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। তবে খাবারের দোকান ও ফার্মেসিগুলো খোলা থাকবে ২৪ ঘণ্টাই। ক্রেতা-বিক্রেতা সবারই মাস্ক-গ্লাভস পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
এছাড়া, ব্যক্তিগত গাড়িতে একই পরিবারের সদস্যরা কোনো ধরনের বাধা ছাড়াই চলাচল করতে পারবে বলে জানিয়েছে দুবাই পুলিশ।
সৌদি আরব
গত মাসে সৌদি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দেশটিতে ২৯ এপ্রিল থেকে ১৩ মে পর্যন্ত সবধরনের পাইকারি ও খুচরা পণ্য বিক্রয়কেন্দ্রগুলো খোলা থাকবে। বাণিজ্যিক কার্যক্রম চলবে সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত।
লেবানন
সোমবার থেকে রেস্টুরেন্টগুলো ৩০ শতাংশ ক্রেতা প্রবেশের শর্তে আবারও খুলে দিয়েছে লেবানন। তবে ক্যাফে, ক্লাব ও বারগুলো অন্তত জুন মাস পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।
ইসরায়েল
টানা সাত সপ্তাহ পর রোববার থেকে ইসরায়েলের কিছু এলাকায় স্কুলগুলো খুলে দেয়া হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, দেশটির অন্তত ৮০ শতাংশ স্কুলই ফের চালু হয়েছে।

শেয়ার করুন

0 comments: