রবিবার, মে ০৩, ২০২০

কুয়েতে কাজে ফেরার জন্য প্রস্তুত থাকার আহবান

করোনাভাইরাসের প্রাদূর্ভাব প্রতিরোধে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতাে মধ্যপ্রাচ্যের সমৃদ্ধশালী দেশ কুয়েতে জীবনযাত্রা স্থবির হয়ে আছে। দীর্ঘদিন বন্ধ রয়েছে অনেক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। লকডাউনে কাজ বন্ধ, চলছে না কারখানা চাকা।
তবে এবার স্থবিরতা কাটিয়ে অর্থনীতির চাকা আবারো সচল করতে উদ্যোগ নিচ্ছে দেশটির সরকার। এ জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে নির্দেশনা দেওয়ার পাশাপাশি দেশের নাগরিক ও প্রবাসীদের কাজে ফেরার জন্য প্রস্তুত থাকার জন্য আহবান জানানো হয়েছে।
আরব টাইমস পত্রিকায় রবিবার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, সব তথ্য বিবেচনায় রেখে কাজ করার জন্য প্রস্তুত হওয়ার নির্দেশনা এসেছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোতে। তবে এক্ষেত্রে সব ধরনের সতর্কতা আর সাবধনতামূলক ব্যবস্থা নিশ্চিত করেই সকলকে কাজে ফেরানো হবে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। যেসব কারখানা বন্ধ ছিল বা যেগুলোতে কাজ অব্যাহত ছিল সেগুলোতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েই ঝুঁকি কমিয়ে কাজ শুরু করা হবে বলে জানান তারা।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও এর মধ্যে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে। যেহেতু এই অবস্থা চলতে থাকলে ব্যবসায় চরম ক্ষতিতে পড়বে আর অর্থনীতি পুরোটায় ধ্বংসের মুখোমুখি হবে, সেহেতু কুয়েতেও কাজ পুনরায় চালু করার কথা ভাবছে।
এক্ষেত্রে প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানের জন্য সরকার সমন্বয়ের মাধ্যমে তারিখ নির্ধারণ করে কাজে ফেরার অনুরোধ জানানো হবে। যেহেতু এখানে দেশের পরিস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ সেহেতু কুয়েতও তাদের পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে নির্দিষ্ট তারিখে আবার চালু করবে তাদের অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও ব্যবসায়িক নানা প্রতিষ্ঠান। বিষয়টি কখন করা হবে তা নির্ভর করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য মন্ত্রনালয়ের সিদ্ধান্ত আর প্রতিবেদনের উপর।
মন্ত্রনালয়ের সূত্র আরো জানিয়েছে, কাজে ফেরার জন্য নাগরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিতে তারা প্রযুক্তিগত সমাধানের দিকে যাবে। এক্ষেত্রে ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতি আর আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় উপর গুরুত্ব দেয়া হবে। এতে করে কর্মীদের উপর চাপ যেমন কমবে তেমনি প্রতিষ্ঠানের ভেতর অনেক ক্ষেত্রে ভিড় কমানো সম্ভব হবে।
এমনভাবে এই প্রতিষ্ঠানগুলোতে কাজ শুরু হবে যাতে কর্মীদের নূন্যতম ব্যক্তিগত উপস্থিতির বিষয়টির সাথে জনসমাগম আর সামাজিক দুরত্বের বিষয়টিও নিশ্চিত হয়।
এদিকে কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের শনিবার দেওয়া সবশেষ তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে নতুন আরও ২৪২ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৪ হাজার ৬১৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে চিকিৎসাধীন ২ হাজার ৮৮৩ জন, সংকটপূর্ণ ৬৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭০৩ জন।
শনিবার নতুন করে ৩ জনের মৃত্যুর কথা ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে ১ জন বাংলাদেশি (৪৩), ১ জন ভারতীয় (৩৪) নাগরিক এবং একজন জর্ডানিয়ান (৭২) ।
এ নিয়ে কুয়েতে করোনায় মারা গেছেন ৩৩ জন। যার মধ্যে রয়েছে ১২ জন ভারতীয়, ৭ জন বাংলাদেশি, ২ জন ইরানি, ১জন সোমালি, ২ জন মিশরীয়, ১ জন জর্ডানিয়ান, ১ জন ফিলিপাইনি ও ৭ জন কুয়েতি।
শনিবার ঘোষিত নতুন আক্রান্তের মধ্যে ২১ জন প্রবাসী বাংলাদেশি রেয়েছেন। এ নিয়ে এ পর্যন্ত কুয়েতে ৩৬১ জন প্রবাসী বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

শেয়ার করুন

0 comments: